নোটিশ

মা দিবস কবে? বিশ্ব মা দিবস কত তারিখ ও ইতিহাস জানুন

মা দিবস কবে পালন করা হয়? আপনি যদি মা দিবস সম্পর্কে আমাদের ওয়েবসাইটে আসেন তাহলে আপনাকে স্বাগতম। কারণ আমরা আপনাকে মা দিবস সম্পর্কে জানাবো এবং সেইসাথে মা দিবস কবে এবং কেন পালন করা হয় সে সম্পর্কে আপনাদেরকে জানাবো। “মা” সবচেয়ে মধুর একটি শব্দ। যেখানে জড়িয়ে থাকে সকল ভালোবাসা, মায়া, মমতা, স্নেহ, শ্রদ্ধা এবং স্বর্গের এক অন্যরকম অনুভূতি। পৃথিবীর প্রত্যেকটি দিনই মায়েদের জন্য তবে একটি বিষয় মায়েদেরকে বিশেষভাবে সম্মান দেয়ার জন্য এই মা দিবস পালন করা হয়। তবে তাহলে চলো আর দেরি না করে আমরা আমাদের সম্পর্কে জেনে নেই।

মা দিবস

মা দিবস হচ্ছে মায়েদের জন্য একটি বিশেষ দিন। যে দিনে মায়েদের জন্য একটি বিশেষ ভাবে অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয় এবং সেই অনুষ্ঠানের মাধ্যমে মায়েদেরকে বিশেষভাবে সম্মানিত করা হয়। আর সেই বিশেষ দিনটিকে মা দিবস হিসেবে পালন করে থাকে বিশ্ব। তবে সাধারণত মার্চ, এপ্রিল এবং মে মাসের মধ্যে মা দিবস পালন করা হয় বিশ্বে, আর এর মূল কারণ হচ্ছে একেক দেশে একেক সময় মা দিবস পালন করা হয়। সুতরাং মায়েদের প্রতি সম্মান প্রদর্শনের জন্য একটি দিন কে কেন্দ্র করে বিশেষভাবে অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে মা দিবস উদযাপিত হয়।

বিশ্ব মা দিবস বা বিশ্ব মাতৃ দিবস পালন করার মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে- পৃথিবীর সকল মায়েদের কে বিশেষভাবে সম্মানিত করা এবং তাদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা এবং ভালোবাসা বিনিময় করা। সুতরাং আমরা ইতিমধ্যে জেনে গেছি যে মা দিবস পালন করার মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে মায়েদেরকে বিশেষভাবে সম্মানিত করা।

মা দিবস কবে?

মা দিবস বা মাতৃ দিবস পালন করার মূল উদ্দেশ্য আমরা পূর্বে জেনেছি যে মায়েদের প্রতি সম্মান প্রদর্শনের জন্য এই বিশেষ দিনটি উদযাপিত হয়ে আসছে। আমরা পৃথিবীতে যতই পরিশ্রম করি না কেনো তবুও আমরা আমাদের মায়েদের ঋণ কখনো পরিশোধ করতে পারব না, তাই আমরা মাতৃত্বকে শ্রদ্ধা জানানোর উদ্দেশ্যে এ দিনটি উদযাপন করে থাকি। আর বিশ্ব মা দিবস পালন করা হয় একটি নির্দিষ্ট দিনে। যদিওবা একেক দেশের মানুষ একেক সময় পালন করে থাকে কিন্তু বিশ্বব্যাপী বিশ্ব মা দিবস পালন করে থাকে ৮ই মে

আর দিনটির মধ্যে দিয়ে সমস্ত পৃথিবী মায়েদের জন্য যথাযোগ্য ভাবে একটি আয়োজনের মধ্য দিয়ে মায়েদেরকে বিশেষভাবে শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা বিনিময় করে থাকেন। তাই একটি বছরে ৩৬৫ দিনের মধ্যে ৮ই মে হচ্ছে সকল মানুষের একটি বিশেষ দিন। আর এর মূল কারণ হচ্ছে মায়েদেরকে সম্মান জানানোর উদ্দেশ্যে এই দিনটি পালন করা হয় কারণ পৃথিবীতে মা হচ্ছে একমাত্র আপন।

বিশ্ব মা দিবস কত তারিখ?

বিশ্ব মা দিবস কত তারিখ অনুষ্ঠিত হবে তা আমরা সকলেই জানি তবে আমরা এখন পর্যন্ত যারা জানেনা তারা আমাদের এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে জানতে পারবেন। বিশ্ব মা দিবস খ্রিস্টাব্দ অনুসারে প্রত্যেক বছর পালন করা হয় ৮ই মে

বিশ্ব মা দিবসের ইতিহাস

মা দিবস বা মাতৃ দিবস কে পর্যালোচনা করলে আমরা বিভিন্ন ইতিহাস খুঁজে পাই। তবে ইতিহাস পর্যালোচনা করার পর আমরা যে ইতিহাসটি সবচেয়ে বেশি প্রচলিত সেই ইতিহাস সম্পর্কে আপনাদেরকে জানাবো। যাতে করে আপনারা বিশ্ব মা দিবস এর সঠিক ইতিহাস জানতে পারেন এবং সেইসাথে বিশ্ব মা দিবস পালন করতে পারেন।

প্রাচীন গ্রিসের আরাধনার প্রথা হতে জানা যায় যে গ্রিক দেবতার একজন বিশিষ্ট দেবী সিভিল এর উদ্দেশ্যে এই উৎসব পালন করা হতো। এরপর এশিয়া মাইনরে মহাবিষুব এর সময়কাল এবং রুমের আইডিজ অফ মার্চ এর সময় এই উৎসব পালন করা হতো। ( ১৫ই মার্চ- ১৮ই মার্চ)।

অন্যদিকে প্রাচীন রোমানদের পক্ষ থেকে জানা যায় মাত্রোনালিয়া নামে এক দেবীর জুনোর প্রতি উৎসর্গ করে মাতৃ দিবস পালন করা হয়। মাদারিং সানডে এর মতবাদ অনুসারে ইউরোপ এবং যুক্তরাজ্য মাতৃ দিবস পালন করার উদ্দেশ্যে মেয়েদেরকে সম্মান জানানোর জন্য একটি নির্দিষ্ট রবিবার কে আলাদা করে রাখা হতো।

এদিকে ক্যাথলিক পঞ্জিকা অনুসারে জানা যায় লেতারে সানডে যার লেন্টের সময়ের চতুর্থ রবিবারে এই দিবস পালন করা হতো, যা ভার্জিন মেরি বা কুমারী মাতা ও প্রধান গির্জার সম্মানের এ দিবসটি উদযাপিত হত। আর এই প্রথা অনুযায়ী এই দিনটিতে নারীদেরকে সূচিত করা হতো প্রতীকী উপহার দেওয়ার মধ্য দিয়ে এবং কৃতজ্ঞতা স্বরূপ নারীদের বাড়ির কাজ অর্থাৎ রান্না এবং ধোয়ার কাজ গুলো বাড়ির অন্য কেউ করে দিত।

সুতরাং বিশেষ করে নারীদের কে বিশেষভাবে সম্মানিত করার জন্য প্রত্যেক মায়েদের উদ্দেশ্যে এই বিশ্ব নারী দিবস পালন করা হয়। তবে কোনো কোনো দেশে আন্তর্জাতিকভাবে নারী দিবস হিসেবে ৮ই মার্চ উদযাপন করা হয় এই বিশ্ব মা দিবসে।

শেষ কথা

আশা করছি আপনারা যারা মা দিবস কবে জানতেননা এবং মা দিবস কেন পালন করা হয় সে সম্পর্কে নির্দিষ্ট ভাবে জানতেন না তারা আমাদের এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে জানতে পেরেছেন। বিশ্ব মা দিবসে সকল মায়েদের জন্য রয়েছে আমাদের ওয়েবসাইটের পক্ষ থেকে বিনম্র শ্রদ্ধা এবং ভালোবাসা। আপনারা যদি আমাদের ওয়েবসাইট থেকে মা দিবস সম্পর্কে আরো জানতে চান তাহলে আমাদেরকে কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে পারেন। ধন্যবাদ।

Check This

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button